ঢাকা ০১:১৯ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

স্ত্রীকে হত্যায় কাজাখস্তানের সাবেক মন্ত্রীকে ২৪ বছরের কারাদণ্ড

অনলাইন ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ০৩:৩২:০৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৪ মে ২০২৪ ১০ বার পড়া হয়েছে
ডেইলি আর্থ অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

মধ্য এশিয়ার দেশ কাজাখস্তানের সাবেক একজন মন্ত্রীকে ২৪ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন দেশটির একটি আদালত। স্ত্রীকে হত্যার দায়ে তাকে এই কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। অভিযুক্ত ওই মন্ত্রী ২০১৬ সালে দেশটির অর্থনীতি মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে ছিলেন।

সোমবার (১৩ মে) রাতে এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে বার্তাসংস্থা রয়টার্স।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সোমবার কাজাখস্তানের একজন সাবেক অর্থনীতি মন্ত্রীকে তার স্ত্রীকে হত্যার জন্য ২৪ বছরের কারাদণ্ডে দণ্ডিত করা হয়েছে। এই বিচার প্রক্রিয়ার দিকে ব্যাপকভাবে নজর রাখা হচ্ছিল, কারণ দেশটির কেউ কেউ নারীর অধিকার জোরদার করার জন্য প্রেসিডেন্টের প্রতিশ্রুতির বিষয়ে এই বিচারকে লিটমাস টেস্ট হিসেবে দেখছিলেন।

রয়টার্স বলছে, ৪৪ বছর বয়সী কুয়ান্দিক বিশিমবায়েভকে আদালত নির্যাতন ও হত্যার দায়ে দোষী সাব্যস্ত করেছে। তার বিচার গত সাত সপ্তাহ ধরে সরাসরি সম্প্রচার করা হয়েছে। আর এটিকে সবার কাছে একটি বার্তা পাঠানোর প্রচেষ্টা হিসাবে ব্যাপকভাবে বিবেচিত হয়েছে যে, অভিজাত ব্যক্তিরা এখন আর আইনের ঊর্ধ্বে নয়।

বিচার চলাকালীন প্রদর্শিত সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যায়, বিশিমবায়েভ তার স্ত্রী ৩১ বছর বয়সী সালতানাত নুকেনোভাকে বারবার ঘুষি ও লাথি মারছেন এবং তাকে তার চুল ধরে, নগ্ন অবস্থায় ঘরে টেনে নিয়ে যাচ্ছেন। আর সেখানেই তিনি পরে মারা যান।

বিশিমবায়েভের মোবাইল ফোনে যে ভিডিওগুলো পাওয়া গেছে, তাতে ২০২৩ সালের ৯ নভেম্বর সকালে জ্ঞান হারানোর আগে শেষ কয়েক ঘণ্টায় ক্ষতবিক্ষত এবং রক্তাক্ত নুকেনোভাকে নির্যাতন করতে দেখা গেছে তাকে।

প্রেসিডেন্ট কাসিম-জোমার্ট টোকায়েভ পাঁচ বছর আগে প্রবীণ কাজাখ নেতা নুরসুলতান নজরবায়েভের স্থলাভিষিক্ত হয়েছেন। তিনি বলেছেন, তিনি নারীদের জন্য উন্নত অধিকারসহ একটি ন্যায্য সমাজ গড়তে চান।

এছাড়া এই মামলাটি ঘরোয়া ও পারিবারিক সহিংসতাকে অপরাধ হিসেবে আখ্যায়িত করা একটি আইনের পেছনে জনসমর্থন জোগাড় করতে সাহায্য করেছে। ওই আইনটি গত মাসে পার্লামেন্টে পাস হয়। সরকারি তথ্য অনুযায়ী, কাজাখস্তানে প্রতি ছয়জনের মধ্যে একজন নারী তাদের পুরুষ সঙ্গীর মাধমে সহিংসতার শিকার হয়েছেন।

রয়টার্স বলছে, বিচারের সময় বিশিমবায়েভ তার স্ত্রীকে মারধর করার কথা স্বীকার করেছেন। তবে তিনি বলেছেন, কিছু আঘাত তার স্ত্রী নিজে থেকেই পেয়েছিলেন। এছাড়া স্ত্রীকে নির্যাতন বা হত্যার পরিকল্পনাও অস্বীকার করেছেন তিনি।

উল্লেখ্য, ২০১৬ সালের মে-ডিসেম্বর পর্যন্ত তেল-সমৃদ্ধ দেশ কাজাখস্তানের অর্থনীতি বিষয়ক মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন কুয়ান্দিক বিশিমবায়েভ। ঘুষ নেওয়ার দায়ে ২০১৮ সালে তিনি দোষী সাব্যস্ত হন এবং ১০ বছরের কারাদণ্ডে দণ্ডিত হন।

কিন্তু সাধারণ ক্ষমা এবং প্যারোলের কারণে তিন বছরেরও কম সময়ের মধ্যে কারাগার থেকে তিনি মুক্তি পেয়েছিলেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

স্ত্রীকে হত্যায় কাজাখস্তানের সাবেক মন্ত্রীকে ২৪ বছরের কারাদণ্ড

আপডেট সময় : ০৩:৩২:০৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৪ মে ২০২৪

মধ্য এশিয়ার দেশ কাজাখস্তানের সাবেক একজন মন্ত্রীকে ২৪ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন দেশটির একটি আদালত। স্ত্রীকে হত্যার দায়ে তাকে এই কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। অভিযুক্ত ওই মন্ত্রী ২০১৬ সালে দেশটির অর্থনীতি মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে ছিলেন।

সোমবার (১৩ মে) রাতে এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে বার্তাসংস্থা রয়টার্স।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সোমবার কাজাখস্তানের একজন সাবেক অর্থনীতি মন্ত্রীকে তার স্ত্রীকে হত্যার জন্য ২৪ বছরের কারাদণ্ডে দণ্ডিত করা হয়েছে। এই বিচার প্রক্রিয়ার দিকে ব্যাপকভাবে নজর রাখা হচ্ছিল, কারণ দেশটির কেউ কেউ নারীর অধিকার জোরদার করার জন্য প্রেসিডেন্টের প্রতিশ্রুতির বিষয়ে এই বিচারকে লিটমাস টেস্ট হিসেবে দেখছিলেন।

রয়টার্স বলছে, ৪৪ বছর বয়সী কুয়ান্দিক বিশিমবায়েভকে আদালত নির্যাতন ও হত্যার দায়ে দোষী সাব্যস্ত করেছে। তার বিচার গত সাত সপ্তাহ ধরে সরাসরি সম্প্রচার করা হয়েছে। আর এটিকে সবার কাছে একটি বার্তা পাঠানোর প্রচেষ্টা হিসাবে ব্যাপকভাবে বিবেচিত হয়েছে যে, অভিজাত ব্যক্তিরা এখন আর আইনের ঊর্ধ্বে নয়।

বিচার চলাকালীন প্রদর্শিত সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যায়, বিশিমবায়েভ তার স্ত্রী ৩১ বছর বয়সী সালতানাত নুকেনোভাকে বারবার ঘুষি ও লাথি মারছেন এবং তাকে তার চুল ধরে, নগ্ন অবস্থায় ঘরে টেনে নিয়ে যাচ্ছেন। আর সেখানেই তিনি পরে মারা যান।

বিশিমবায়েভের মোবাইল ফোনে যে ভিডিওগুলো পাওয়া গেছে, তাতে ২০২৩ সালের ৯ নভেম্বর সকালে জ্ঞান হারানোর আগে শেষ কয়েক ঘণ্টায় ক্ষতবিক্ষত এবং রক্তাক্ত নুকেনোভাকে নির্যাতন করতে দেখা গেছে তাকে।

প্রেসিডেন্ট কাসিম-জোমার্ট টোকায়েভ পাঁচ বছর আগে প্রবীণ কাজাখ নেতা নুরসুলতান নজরবায়েভের স্থলাভিষিক্ত হয়েছেন। তিনি বলেছেন, তিনি নারীদের জন্য উন্নত অধিকারসহ একটি ন্যায্য সমাজ গড়তে চান।

এছাড়া এই মামলাটি ঘরোয়া ও পারিবারিক সহিংসতাকে অপরাধ হিসেবে আখ্যায়িত করা একটি আইনের পেছনে জনসমর্থন জোগাড় করতে সাহায্য করেছে। ওই আইনটি গত মাসে পার্লামেন্টে পাস হয়। সরকারি তথ্য অনুযায়ী, কাজাখস্তানে প্রতি ছয়জনের মধ্যে একজন নারী তাদের পুরুষ সঙ্গীর মাধমে সহিংসতার শিকার হয়েছেন।

রয়টার্স বলছে, বিচারের সময় বিশিমবায়েভ তার স্ত্রীকে মারধর করার কথা স্বীকার করেছেন। তবে তিনি বলেছেন, কিছু আঘাত তার স্ত্রী নিজে থেকেই পেয়েছিলেন। এছাড়া স্ত্রীকে নির্যাতন বা হত্যার পরিকল্পনাও অস্বীকার করেছেন তিনি।

উল্লেখ্য, ২০১৬ সালের মে-ডিসেম্বর পর্যন্ত তেল-সমৃদ্ধ দেশ কাজাখস্তানের অর্থনীতি বিষয়ক মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন কুয়ান্দিক বিশিমবায়েভ। ঘুষ নেওয়ার দায়ে ২০১৮ সালে তিনি দোষী সাব্যস্ত হন এবং ১০ বছরের কারাদণ্ডে দণ্ডিত হন।

কিন্তু সাধারণ ক্ষমা এবং প্যারোলের কারণে তিন বছরেরও কম সময়ের মধ্যে কারাগার থেকে তিনি মুক্তি পেয়েছিলেন।