ঢাকা ১২:৪২ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

শীর্ষে ওঠার সুযোগ হারাল লিভারপুল, শীর্ষেই থাকল আর্সেনাল

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১১:৫১:০৬ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ৮ এপ্রিল ২০২৪ ৬১ বার পড়া হয়েছে
ডেইলি আর্থ অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের শিরোপা লড়াই জমে উঠেছে। লিভারপুলের সামনে সুযোগ ছিল শীর্ষে ফেরার। তবে ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের বিপক্ষে জিততে পারেনি অলরেডরা। ড্র’তেই শেষ হয়েছে ম্যানইউ-লিভারপুল মহারণ।

রোববার রাতে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড-লিভারপুল ম্যাচ ২-২ গোলে ড্র হওয়ায় শিরোপা লড়াইয়ে যোগ হয়েছে নতুন উত্তেজনা। ড্র করায় শীর্ষস্থান হারিয়েছে লিভারপুল। আর্সেনাল স্থায়ীভাবে শীর্ষস্থানের দখল নিয়েছে। আর ম্যানচেস্টার সিটি সেই তিনে রয়েছে।

ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে ছিল আজ মর্যাদার লড়াই। ম্যানইউর শিরোপা জয়ের সম্ভাবনা নেই। তবে, লিভারপুলের জন্য এখন একটি পয়েন্টও যেন সোনার হরিণ। পয়েন্ট হারলেই শিরোপা দৌড়ে পেছনে পড়তে হবে। এ সমীকরণ নিয়েই ম্যানইউর বিপক্ষে আজ খেলতে নেমেছিলো তারা।

কিন্তু ঠিকই পয়েন্ট হারালো ইয়ুর্গেন ক্লপের শিষ্যরা। একের পর এক গোল মিসের মহড়া দিয়ে জয় বঞ্চিত থাকতে হলো মোহাম্মদ সালাহদের। চলতি মৌসুমে শেষ মুহূর্তে এসে জয় পাওয়া বা গোল করে ড্র করা যেন অভ্যাসে পরিণত হয়েছে তাদের। এভাবে ২৭ পয়েন্ট পেয়েছে অল রেডরা। তবে, এবার শেষ মুহূর্তে এসে পাওয়া এই ড্র‘টি ভোগাতে পারে লিভারপুলকে।

সুযোগের পর সুযোগ নষ্ট করা লিভারপুল প্রথমার্ধেই এগিয়ে যেত পারতো ৫-০ গোলে। কিন্তু মোহাম্মদ সালাহদের অবিশ্বাস্য সব সুযোগ নষ্টে সেটা হয়নি। ২৩ মিনিটে কর্নার থেকে ডারউইন নুনিয়েজের মাথা ঘুরে বল আসে লুইস দিয়াজের কাছে। দারুণ এক ভলিতে গোল পেয়ে যান কলম্বিয়ান উইঙ্গার। এই এক গোলে এগিয়ে থেকেই প্রথমার্ধ শেষ করে লিভারপুল।

দ্বিতীয়ার্ধে এসে খেই হারিয়ে ফেলে লিভারপুল। ৫০ মিনিটে লিভারপুলে জ্যারেল কোয়ানশার অবিশ্বাস্য ভুল পাস থকে বল পেয়ে প্রায় ৪৫ গজ দূর থেকে ফাঁকা পোস্টে বল পাঠান ব্রুনো ফার্নান্দেজ। ৬৭ মিনিটে অসাধারণ এক গোল করলেন কোবি মাইনু। ১৮ বছর বয়সী এই মিডফিল্ডার আলেহান্দ্রো গারনাচোর সঙ্গে পাস দেওয়া-নেওয়া করে বাঁ-প্রান্ত থেকে দারুণ এক শটে গোল পেয়ে যান। প্রিমিয়ার লিগ যুগে লিভারপুলের বিপক্ষে ইউনাইটেডের সর্বকনিষ্ঠ গোলদাতা এখন তিনিই।

পিছিয়ে পড়ার পর আবারও আক্রমণের ঝড় বয়ে দেয় লিভারপুল। একের পর এক আক্রমণ করে যাওয়া লিভারপুল সমতায় ফেরে ৮৪ মিনিটে। পেনাল্টি বক্সে হার্ভি এলিয়টকে ফেলে দিয়েছিলেন অ্যারন ওয়ান-বিসাকা। ম্যাচে সহজ সব গোলের সুযোগ নষ্ট করা মোহাম্মদ সালাহ এবার আর ভুল করেননি।

এরপরও সুযোগ পেয়েছে লিভারপুল। লুইজ দিয়াজ দারুণ সুযোগ পেয়েও গোল করতে ব্যর্থ হলেন। সে সঙ্গে জয়বঞ্চিত থাকতে হলো লিভারপুলকে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

শীর্ষে ওঠার সুযোগ হারাল লিভারপুল, শীর্ষেই থাকল আর্সেনাল

আপডেট সময় : ১১:৫১:০৬ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ৮ এপ্রিল ২০২৪

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের শিরোপা লড়াই জমে উঠেছে। লিভারপুলের সামনে সুযোগ ছিল শীর্ষে ফেরার। তবে ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের বিপক্ষে জিততে পারেনি অলরেডরা। ড্র’তেই শেষ হয়েছে ম্যানইউ-লিভারপুল মহারণ।

রোববার রাতে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড-লিভারপুল ম্যাচ ২-২ গোলে ড্র হওয়ায় শিরোপা লড়াইয়ে যোগ হয়েছে নতুন উত্তেজনা। ড্র করায় শীর্ষস্থান হারিয়েছে লিভারপুল। আর্সেনাল স্থায়ীভাবে শীর্ষস্থানের দখল নিয়েছে। আর ম্যানচেস্টার সিটি সেই তিনে রয়েছে।

ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে ছিল আজ মর্যাদার লড়াই। ম্যানইউর শিরোপা জয়ের সম্ভাবনা নেই। তবে, লিভারপুলের জন্য এখন একটি পয়েন্টও যেন সোনার হরিণ। পয়েন্ট হারলেই শিরোপা দৌড়ে পেছনে পড়তে হবে। এ সমীকরণ নিয়েই ম্যানইউর বিপক্ষে আজ খেলতে নেমেছিলো তারা।

কিন্তু ঠিকই পয়েন্ট হারালো ইয়ুর্গেন ক্লপের শিষ্যরা। একের পর এক গোল মিসের মহড়া দিয়ে জয় বঞ্চিত থাকতে হলো মোহাম্মদ সালাহদের। চলতি মৌসুমে শেষ মুহূর্তে এসে জয় পাওয়া বা গোল করে ড্র করা যেন অভ্যাসে পরিণত হয়েছে তাদের। এভাবে ২৭ পয়েন্ট পেয়েছে অল রেডরা। তবে, এবার শেষ মুহূর্তে এসে পাওয়া এই ড্র‘টি ভোগাতে পারে লিভারপুলকে।

সুযোগের পর সুযোগ নষ্ট করা লিভারপুল প্রথমার্ধেই এগিয়ে যেত পারতো ৫-০ গোলে। কিন্তু মোহাম্মদ সালাহদের অবিশ্বাস্য সব সুযোগ নষ্টে সেটা হয়নি। ২৩ মিনিটে কর্নার থেকে ডারউইন নুনিয়েজের মাথা ঘুরে বল আসে লুইস দিয়াজের কাছে। দারুণ এক ভলিতে গোল পেয়ে যান কলম্বিয়ান উইঙ্গার। এই এক গোলে এগিয়ে থেকেই প্রথমার্ধ শেষ করে লিভারপুল।

দ্বিতীয়ার্ধে এসে খেই হারিয়ে ফেলে লিভারপুল। ৫০ মিনিটে লিভারপুলে জ্যারেল কোয়ানশার অবিশ্বাস্য ভুল পাস থকে বল পেয়ে প্রায় ৪৫ গজ দূর থেকে ফাঁকা পোস্টে বল পাঠান ব্রুনো ফার্নান্দেজ। ৬৭ মিনিটে অসাধারণ এক গোল করলেন কোবি মাইনু। ১৮ বছর বয়সী এই মিডফিল্ডার আলেহান্দ্রো গারনাচোর সঙ্গে পাস দেওয়া-নেওয়া করে বাঁ-প্রান্ত থেকে দারুণ এক শটে গোল পেয়ে যান। প্রিমিয়ার লিগ যুগে লিভারপুলের বিপক্ষে ইউনাইটেডের সর্বকনিষ্ঠ গোলদাতা এখন তিনিই।

পিছিয়ে পড়ার পর আবারও আক্রমণের ঝড় বয়ে দেয় লিভারপুল। একের পর এক আক্রমণ করে যাওয়া লিভারপুল সমতায় ফেরে ৮৪ মিনিটে। পেনাল্টি বক্সে হার্ভি এলিয়টকে ফেলে দিয়েছিলেন অ্যারন ওয়ান-বিসাকা। ম্যাচে সহজ সব গোলের সুযোগ নষ্ট করা মোহাম্মদ সালাহ এবার আর ভুল করেননি।

এরপরও সুযোগ পেয়েছে লিভারপুল। লুইজ দিয়াজ দারুণ সুযোগ পেয়েও গোল করতে ব্যর্থ হলেন। সে সঙ্গে জয়বঞ্চিত থাকতে হলো লিভারপুলকে।