ঢাকা ১২:৩৪ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আবারো চেন্নাইয়ের হার, ম্লান মোস্তাফিজ

স্পোর্টস ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ০৯:১০:৪৯ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৪ ১৬ বার পড়া হয়েছে

দলকে জিতিয়ে লখনৌ তারকা স্টয়নিসের উল্লাস। ছবি : বিসিসিআই

ডেইলি আর্থ অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

ফের হোঁচট খেল মোস্তাফিজের চেন্নাই। আবারো হেরে গেছে হলুদ জার্সিধারীরা। পরপর দুই ম্যাচে লখনৌ সুপার জায়ান্টের সঙ্গে হারল চেন্নাই সুপার কিংস। আগের ম্যাচে লখনৌর মাঠে, এবার ঘরের মাঠেই পরাজয়ের তিক্ততা পেতে হলো চেন্নাইকে। এম এ চিদাম্বরম স্টেডিয়ামে বোলারদের ব্যর্থতায় ২০০ এর বেশি রান করেও ম্যাচ বাঁচাতে পারল না দলটি।

আইপিএলে মঙ্গলবার (২৩ এপ্রিল) লখনৌর কাছে ছয় উইকেটে হারতে হলো ধোনি-মুস্তাফিজদের। সুবিধা করতে পারেননি মোস্তাফিজও, ১ উইকেট পেলেও রান দিয়েছেন বেশ। সব মিলিয়ে হতাশাময় একটা দিন কাটাল আইপিএলের সর্বোচ্চ শিরোপাজয়ীরা।

লখনৌর ঘরের মাঠে শুক্রবার তাদের মুখোমুখি হয় চেন্নাই সুপার কিংস। টসে হেরে আগে ব্যাট করে ৬ উইকেটে ১৭৬ রান তুলে চেন্নাই। জবাবে ১ ওভার হাতে রেখে ৮ উইকেটের বড় জয় তুলে নেয় লাখনৌ সুপার জায়ান্ট। ম্যাচে বল হাতে ৪৩ রানে ১ উইকেট নেন মোস্তাফিজ।

১৭৭ রানের লক্ষ্য ক্রিকেটে বেশ শক্ত পুঁজি হলেও আইপিএলে যে নিছকই সংখ্যা, তাই যেন মনে করিয়ে দিল লাখনৌ। হেসেখেলেই জয় তুলে নিয়েছেন তারা। মোস্তাফিজ ছাড়া কেবল পাথিরানা পেয়েছেন উইকেটের দেখা। জোড়া ফিফটি হাঁকিয়েছেন দুই ওপেনার কুইন্টন ডি কক ও লোকেশ রাহুল।

দুই ওপেনারই ম্যাচের ভাগ্য লিখে ফেলেন। গড়েন ৯০ বলে ১৩৪ রানের জুটি। শেষ কয়েক ম্যাচে রান না পাওয়া ডি কক এ দিন ফিফটি তুলে নিলেও তা ছিল না তার মতো। ৪৩ বলে ৫৪ রান করেন তিনি। তবে রাহুল ছিলেন বিধ্বংসী, আউট হবার আগে ৫৩ বলে করেন ৮২ রান। তাছাড়া ১২ বলে ২৩* রান করেন নিকোলাস পুরান।

এর আগে অবশ্য ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভালো হয়নি চেন্নাইয়ের। ১২.২ ওভারে মাত্র ৯০ রানেই হারায় ৫ উইকেট। যেখানে আজিঙ্কা রাহানের ২৪ বলে ৩৬ রান কেবল বলার মতো সংগ্রহ। রাচিন রাবিন্দ্র ফেরেন গোল্ডেন ডাক নিয়ে। অধিনায়ক রুতুরাজ করেন ১৩ বলে ১৭ রান।

চেন্নাইয়ের ইনিংস ধরে রাখার মূল কাজটা করেন রাবিন্দ্র জাদেজা। তার ৪০ বলে অপরাজিত ৫৭ রানের ইনিংস লড়াইয়ের পথে রাখে দলকে৷ মইন আলির সাথে গড়েন ৩৩ বলে ৫৭ রানের জুটি। ২০ বলে ৩০ রান করেন মইন।।তবে দলের সংগ্রহ দেড় শ’ পাড় হয় মাহেন্দ্র সিং ধোনির হাতে। এ দিনও জ্বলে উঠেন এই ব্যাটার।

শেষ দিকে ব্যাট করতে নেমে মাত্র ৯ বলে করেন ২৮* রান। তাতেই লড়াইয়ের পুঁজি পায় চেন্নাই।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

আবারো চেন্নাইয়ের হার, ম্লান মোস্তাফিজ

আপডেট সময় : ০৯:১০:৪৯ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৪

ফের হোঁচট খেল মোস্তাফিজের চেন্নাই। আবারো হেরে গেছে হলুদ জার্সিধারীরা। পরপর দুই ম্যাচে লখনৌ সুপার জায়ান্টের সঙ্গে হারল চেন্নাই সুপার কিংস। আগের ম্যাচে লখনৌর মাঠে, এবার ঘরের মাঠেই পরাজয়ের তিক্ততা পেতে হলো চেন্নাইকে। এম এ চিদাম্বরম স্টেডিয়ামে বোলারদের ব্যর্থতায় ২০০ এর বেশি রান করেও ম্যাচ বাঁচাতে পারল না দলটি।

আইপিএলে মঙ্গলবার (২৩ এপ্রিল) লখনৌর কাছে ছয় উইকেটে হারতে হলো ধোনি-মুস্তাফিজদের। সুবিধা করতে পারেননি মোস্তাফিজও, ১ উইকেট পেলেও রান দিয়েছেন বেশ। সব মিলিয়ে হতাশাময় একটা দিন কাটাল আইপিএলের সর্বোচ্চ শিরোপাজয়ীরা।

লখনৌর ঘরের মাঠে শুক্রবার তাদের মুখোমুখি হয় চেন্নাই সুপার কিংস। টসে হেরে আগে ব্যাট করে ৬ উইকেটে ১৭৬ রান তুলে চেন্নাই। জবাবে ১ ওভার হাতে রেখে ৮ উইকেটের বড় জয় তুলে নেয় লাখনৌ সুপার জায়ান্ট। ম্যাচে বল হাতে ৪৩ রানে ১ উইকেট নেন মোস্তাফিজ।

১৭৭ রানের লক্ষ্য ক্রিকেটে বেশ শক্ত পুঁজি হলেও আইপিএলে যে নিছকই সংখ্যা, তাই যেন মনে করিয়ে দিল লাখনৌ। হেসেখেলেই জয় তুলে নিয়েছেন তারা। মোস্তাফিজ ছাড়া কেবল পাথিরানা পেয়েছেন উইকেটের দেখা। জোড়া ফিফটি হাঁকিয়েছেন দুই ওপেনার কুইন্টন ডি কক ও লোকেশ রাহুল।

দুই ওপেনারই ম্যাচের ভাগ্য লিখে ফেলেন। গড়েন ৯০ বলে ১৩৪ রানের জুটি। শেষ কয়েক ম্যাচে রান না পাওয়া ডি কক এ দিন ফিফটি তুলে নিলেও তা ছিল না তার মতো। ৪৩ বলে ৫৪ রান করেন তিনি। তবে রাহুল ছিলেন বিধ্বংসী, আউট হবার আগে ৫৩ বলে করেন ৮২ রান। তাছাড়া ১২ বলে ২৩* রান করেন নিকোলাস পুরান।

এর আগে অবশ্য ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভালো হয়নি চেন্নাইয়ের। ১২.২ ওভারে মাত্র ৯০ রানেই হারায় ৫ উইকেট। যেখানে আজিঙ্কা রাহানের ২৪ বলে ৩৬ রান কেবল বলার মতো সংগ্রহ। রাচিন রাবিন্দ্র ফেরেন গোল্ডেন ডাক নিয়ে। অধিনায়ক রুতুরাজ করেন ১৩ বলে ১৭ রান।

চেন্নাইয়ের ইনিংস ধরে রাখার মূল কাজটা করেন রাবিন্দ্র জাদেজা। তার ৪০ বলে অপরাজিত ৫৭ রানের ইনিংস লড়াইয়ের পথে রাখে দলকে৷ মইন আলির সাথে গড়েন ৩৩ বলে ৫৭ রানের জুটি। ২০ বলে ৩০ রান করেন মইন।।তবে দলের সংগ্রহ দেড় শ’ পাড় হয় মাহেন্দ্র সিং ধোনির হাতে। এ দিনও জ্বলে উঠেন এই ব্যাটার।

শেষ দিকে ব্যাট করতে নেমে মাত্র ৯ বলে করেন ২৮* রান। তাতেই লড়াইয়ের পুঁজি পায় চেন্নাই।